আজানের উচ্চস্বরে আপত্তি, দেড় বছরের কারাদণ্ড

শনিবার, ২৫ আগস্ট ২০১৮ ২০:৪৬ ঘণ্টা

মাইকে আজানের অতিরিক্ত শব্দের মাত্রা বা উচ্চস্বর নিয়ে ব্যক্তিগত কথোপকথনে আপত্তি জানানোর ঘটনায় চীনা বংশোদ্ভূত মেইলিয়ানা নামে এক খ্রিস্টান নারীকে দেড় বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে সুমাত্রার একটি আদালত। ২০১৬ সাল মেইলিয়ানার নামে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে মামলা হয়। সম্প্রতি আদালত অভিযুক্ত নারীকে ধর্ম অবমাননা দায়ে এই সাজা দেয়।

কিন্তু ইন্দোনেশিয়ার ধর্মীয় সংগঠন নাহদাতুল উলামা বলছে, মাইকের আজানের উচ্চস্বর নিয়ে আপত্তি জানানো ধর্ম অবমাননার আওতায় পড়ে না। শুক্রবার (২৪ আগস্ট) সংগঠনটির এক বিবৃতিতে প্রায় চার কোটি সদস্যের সংগঠন নাহদাতুল উলামার আইন বিভাগের প্রধান রবিকিন এমহাস বলেন, ‘মাইকে দেয়া আজানের শব্দ অনেক বেশি, এমনটা বললে তাকে ধর্ম অবমাননা হিসেবে গণ্য করা যায় না। বরং ইন্দোনেশিয়ার মতো একটি বহুত্ববাদী সমাজে এমন অভিযোগকে মুসলমানদের গঠনমূলক সমালোচনা হিসেবেই দেখা উচিত।’

অভিযুক্ত নারীর আইনজীবী আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার কথা জানিয়ে উল্লেখ করেন, ২০১৬ সালে তার মক্কেল ব্যক্তিগত কথোপকথনে মসজিদে ব্যবহৃত মাইকের উচ্চ শব্দ নিয়ে আপত্তি জানিয়েছিলেন। কিন্তু তার বক্তব্যকে এমনভাবে বিকৃত করে উপস্থাপন করা হয়েছে যেন তার অবস্থান আজানেরই বিরুদ্ধে।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল আদালাতের এ রায়কে হাস্যকর উল্লেখ করে তার মুক্তির দাবিতে ইন্টারনেটে একটি আবেদনপত্র প্রকাশ করে।

We use cookies to improve our website. By continuing to use this website, you are giving consent to cookies being used. More details…