৮ হাজার ২২৯ কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র বিক্রি

রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ১৮:২৮ ঘণ্টা

সঞ্চয়পত্র ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইতে ৮ হাজার ২২৯ কোটি ৬১ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র বিক্রি হয়েছে। গত অর্থবছরের শেষ মাস জুনে মোট সঞ্চয়পত্র বিক্রি হয় ৫ হাজার ৬৮৯ কোটি টাকা। এই হিসাবে জুনের চেয়ে জুলাই মাসে সঞ্চয়পত্র বিক্রি বেড়েছে ২ হাজার ৫৪১ কোটি টাকা। এদিকে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে প্রথম মাসে (জুলাই) ৭ হাজার ৩৫২ কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র বিক্রি হয়েছিল। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, জুলাই মাসে সরকার সঞ্চয়পত্র বিক্রি করে নিট ঋণ নিয়েছে ৫ হাজার ৩৬ কোটি টাকা। গত জুন মাসে সরকার নিট ঋণ নিয়েছিল ৩ হাজার ১৬৬ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। তবে গত ২০১৭-১৮ বছরের জুলাইয়ে সঞ্চয়পত্রে নিট ঋণ ছিল ৫ হাজার ৫৩ কোটি ৫৪ লাখ টাকা।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, ব্যাংক আমানতের সুদহার নিম্নমুখী ও ব্যাংকের প্রতি এখন মানুষের আস্থা কমে যাওয়ায় কয়েক বছর ধরে নিরাপদ বিনিয়োগের আশায় সঞ্চয়পত্রে ঝুঁকছেন মানুষ।

জানা যায়, দু’টি কারণে সবাই সঞ্চয়পত্রের দিকে ঝুঁকছেন। প্রথমত, গ্রাহকদের কাছে অর্থের উৎস জানতে চাওয়া হয় না। দ্বিতীয়ত, সঞ্চয়পত্রের সুদের হার যেকোনও আমানতের সুদের হারের চেয়ে অনেক বেশি।

সূত্র জানায়, তিন বছর ধরে ধরে সঞ্চয়পত্রের সুদহার ১১ শতাংশের ওপরে রয়েছে। পাঁচ বছর মেয়াদি পেনশন সঞ্চয়পত্রের সুদের হার ১১ দশমিক ৭৬ শতাংশ। পাঁচ বছর মেয়াদি পরিবার সঞ্চয়পত্রের সুদের হার ১১ দশমিক ৫২ শতাংশ। পাঁচ বছর মেয়াদি বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্রের সুদের হার ১১ দশমিক ২৮ শতাংশ এবং তিন মাস অন্তর মুনাফাভিত্তিক সঞ্চয়পত্রের সুদের হার ১১ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ। সর্বশেষ ২০১৫ সালে মে মাসে সব ধরনের সঞ্চয়পত্রের সুদহার গড়ে ২ শতাংশ করে কমানো হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাবে গত অর্থবছরে (জুলাই-জুন) বিক্রি হয়েছে ৭৮ হাজার ৭৮৪ কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র। এর আগের অর্থ বছরে ২০১৬-১৭ বিক্রি হয়েছিল ৭৫ হাজার ১৩৪ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। তবে সঞ্চয়পত্র বিক্রি বাড়ার কারণে গত অর্থবছরে সরকারের সুদ পরিশোধও বেড়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে, গত জুলাই মাসে মূল ও মুনাফা পরিশোধে সরকারের ব্যয় হয়েছে ৩ হাজার ১৯৩ কোটি ৮৭ লাখ টাকা । তার মধ্যে মুনাফা বাবদ পরিশোধ করা হয়েছে ১ হাজার ৮৯০ কোটি ৩২ লাখ টাকা। আর বিদায়ী অর্থবছরের শেষ মাস অর্থাৎ জুনে সঞ্চয়পত্র থেকে সরকার নিট ঋণ নিয়েছে ৩ হাজার ১৬৬ কোটি টাকা। ২০১৭ সালের মে মাসে সরকার এই খাত থেকে নিট ঋণ নিয়েছিল ৩ হাজার ৩০০ কোটি টাকা, এপ্রিলে নিয়েছিল ৩ হাজার ৩৫৪ কোটি টাকা, মার্চে ৩ হাজার ৫৮৯ কোটি টাকা নিট ঋণ নেয়, ফেব্রুয়ারিতে নিট ঋণ নেয় ৪ হাজার ১৫৬ কোটি টাকা এবং জানুয়ারিতে নিট ঋণ নেয় ৫ হাজার ১৩৯ কোটি টাকা।

জানা যায়, বিদায়ী ২০১৭-১৮ অর্থবছরে সঞ্চয়পত্র থেকে সরকারের নিট ঋণ দাঁড়ায় প্রায় ৪৬ হাজার ৫৩০ কোটি টাকা, যা ঘাটতি বাজেট অর্থায়নে সরকার নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা (সংশোধিত) থেকেও প্রায় ২ হাজার ৫৩০ কোটি টাকা বেশি। বিদায়ী অর্থবছরে সংশোধিত বাজেটে সঞ্চয়পত্র থেকে সরকারের ঋণ গ্রহণের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৪৪ হাজার কোটি টাকা। তবে চলতি অর্থবছরে এই খাত থেকে সরকারের ঋণ নেওয়ার লক্ষ্য রয়েছে ২৬ হাজার ১৭৯ কোটি টাকা।

We use cookies to improve our website. By continuing to use this website, you are giving consent to cookies being used. More details…