কাজের চেয়ে কুকথার কদর বেশি

বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৭ ১২:৪৪ ঘণ্টা

এ বছর বলিউড মাত করা কয়েকটি ছবির নাম বলতে গেলে কয়টির নাম মনে পড়বে? অতিসাম্প্রতিক দু-একটা ছাড়া বলার মতো তো আর কোনো ছবি কি আছে? বলিউডের বড় বড় বক্স অফিস গবেষকদেরও কাছে এটা এখন কঠিন প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। ২০১৭ সালটা সিনেমার জন্য এক ঝিমিয়ে পড়া বছর। তবে বক্স অফিসে যা-ই হোক না কেন, বলিউড সরগরম ছিল তারকাদের ব্যক্তিজীবনের চড়াই-উতরাই, গুজব, বিতর্ক আর কুকথা দিয়ে। তারকারা কাজ দিয়ে না পারলেও, বেফাঁস কথা দিয়ে বক্স অফিসের ব্যর্থতা রেখেছেন। আজ সেই ঝিমিয়ে বছরেই একটু কথায়-লেখায় ঢুঁ মারব—

কঙ্গনা রনৌতবিতর্কের রানি কঙ্গনা

গত বছর পর্যন্তও নিজের কাজ দিয়ে কঙ্গনা রনৌত বক্স অফিস মাত করে রেখেছিলেন। বলা হচ্ছিল, সব খানদের ভিত নড়িয়ে দেওয়ার মতো পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন তিনি। কিন্তু এ বছর কঙ্গনার নিজের অবস্থাই ছিল খানিকটা নড়বড়ে। জীবনের কঠিনতম বছরটি তিনি কাটিয়েছেন এই ২০১৭-তে। ব্যক্তিজীবনে সাহসী এক ভূমিকায় দেখা গেছে তাঁকে। মুখ খুলেছেন তাঁর সঙ্গে ঘটে যাওয়া নানা অন্যায়-অবিচার নিয়ে। এ কারণে বছরের শুরু থেকেই জড়িয়ে গেছেন নানা ধরনের দ্বন্দ্বে। করণ জোহরের টক শোতে এসে খোদ সঞ্চালকের সঙ্গে ঝগড়া বাধিয়েছেন। এরপর সাবেক প্রেমিক আদিত্য পাঞ্চোলির বিরুদ্ধে তুলেছেন নির্যাতনের অভিযোগ। সহ-অভিনেতা হৃতিক রোশনকে নিয়েও নানা ধরনের মন্তব্য করে তিনি অনেকের চক্ষুশূল হয়েছেন। এমনকি কিছু ব্যক্তি তো তাঁকে মানসিক ভারসাম্যহীন পর্যন্ত বলেছেন এ বছর। তবু অবিচল কঙ্গনা। তিনি তাঁর মতো কাজ করে গেছেন। কিন্তু কাজ দিয়ে সাড়া ফেলতে পারেননি তেমন। তাঁর অভিনীত রেঙ্গুনসিমরানছবি দুটি ২০১৭ সালের ব্যর্থ ছবির তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে। যদিও ছবি দুটোয় প্রশংসিত হয়েছেন কঙ্গনা। কিন্তু দিন শেষে হিসাব মেলাতে গিয়ে প্রযোজক পড়েছেন লোকসানে। তাই বছরের শেষ দিকে কঙ্গনাকে এটা বলতে শোনা গিয়েছে যে ‘আমার হাতে কাজ কমে গেছে।’

পদ্মাবতী ছবিতে দীপিকা পাড়ুকোন


অসহিষ্ণুতার শিকার বলিউড

দীপিকা পাড়ুকোনের গলা তো আরেকটু হলেই কাটা পড়ত। ২০১৫ সালে আমির খান পুরো ভারতকেই ‘অসহিষ্ণু’ বলে দারুণ বিপাকে পড়েছিলেন। কিন্তু সেই অসহিষ্ণুতা যে কোন মাত্রায় পৌঁছাতে পারে, তা এ বছর হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছে বলিউড। এক পদ্মাবতী ছবিকে ঘিরেই তো ঘটনা রক্তারক্তি পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছিল। ইতিহাস বিকৃতির অভিযোগ এনে ছবির মুক্তি এ বছরের মতো আটকেই গেল। অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন, নির্মাতা সঞ্জয় লীলা বানশালীর কাটা মাথার ওপর লাখ রুপি দাম ওঠে। তা ছাড়া দঙ্গল-কন্যা ফাতিমা সানা শেখের ছোট্ট এক সেলফি নিয়েও তো কম হলো না। শাড়ি পরা একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করায় কত বাজে কথাই না শুনতে হলো এ অভিনেত্রীকে। বছরের শুরুতে শাহরুখ ও পাকিস্তানের মাহিরা খান অভিনীত রইসকেও তো মুক্তির জন্য কত ঝক্কি পোহাতে হলো। সীমান্তে ভারতীয় সেনা সদস্য নিহত হওয়ার জের ধরে দেশটিতে পাকিস্তানের শিল্পী ও কুশলীদের অভিনয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি হয় ২০১৭ সালের প্রথম ভাগে। এ কারণে রইস-এর মাহিরা খান ও অ্যায়দিলহ্যায়মুশকিল-এর ফাওয়াদ খানের কারণে ছবি দুটি বিপাকে পড়ে। অবশেষে মোটা অঙ্কের ভর্তুকি দিয়ে মুক্তি পায় ছবি দুটি আর তখনই ঠিক করা হয়, কোনো পাকিস্তানি শিল্পী সুযোগ পাবেন না বলিউডে কাজ করার।

টয়লেট: এক প্রেম কথা ছবিতে অক্ষয় কুমার
টিভিতেও তোলপাড়

বছরের বিতর্কিত ঘটনার একটি ছিল টিভি তারকা কপিল শর্মা ও সুনিল গ্রোভারের দ্বন্দ্ব। শুধু এই একটি দ্বন্দ্বের কারণে ভারতীয় চ্যানেলগুলোর টিআরপির শীর্ষে থাকা অনুষ্ঠান ‘দ্য কপিল শর্মা শো’ বন্ধ হয়ে যায়। তোলাপাড় ওঠে ভারতের টেলিভিশন জগতে। এমনকি এখন এ অনুষ্ঠানের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে দাঁড়াতে পারেনি আর কোনো কমেডি শো।

শাহরুখ খান ও সালমান খান
খানদের তেজ কমেছে, জয়ী কুমার-দেবগন

শাহরুখের রইস, জবহ্যারিমেটসেজল, সালমানের টিউবলাইট, আমিরের সিক্রেটসুপারস্টার—সব ছবির বক্স অফিস আয় হতাশ করেছিল বলিউড বণিকদের। যতটা প্রত্যাশা ছিল ‘খান’দের ঘিরে, ততটা তাঁরা পূরণ করতে পারেননি। দারুণ কষ্ট করে ধীরগতিতে তাঁদের এ বছরের ছবিগুলো ছুঁয়েছে ১০০ কোটির কোটা। অন্যদিকে অক্ষয় কুমার, অজয় দেবগন ও হৃতিক রোশনরা এ বছর প্রত্যাশাকে ছাপিয়ে গেছেন অনেক দিক থেকে। অক্ষয়ের জন্য তো ২০১৭ সাল ছিল সোনায় সোহাগা বছর। তিনি জিতেছেন সেরা অভিনেতা হিসেবে ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। তা ছাড়া তাঁর তিন ছবি জলিএলএলবিটু, নামশাবানাটয়লেট: একপ্রেমকথাবক্স অফিসে করে প্রত্যাশিত ব্যবসা। অন্যদিকে অজয় দেবগনের গোলমালঅ্যাগেইনছবিটি এ বছরই পায় অপ্রত্যাশিত সাফল্য। অল্প সময়ের মধ্যেই ছাপিয়ে যায় ১০০ কোটির কোটা।

আদররহমান

ইন্ডিয়ানএক্সপ্রেস, আইএএনএস, ইন্ডিয়াটুডে, স্কুপহুপ অবলম্বনে

We use cookies to improve our website. By continuing to use this website, you are giving consent to cookies being used. More details…