লম্বা হলে কি হয় জানেন?

মঙ্গলবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ২১:২৩ ঘণ্টা

সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য জরুরি শরীরে স্বাভাবিক রক্ত সঞ্চালন। ব্লাড ক্লটিং, রক্ত জমাট বাঁধার সমস্যা ডেকে আনতে পারে ভয়াবহ বিপদ। অনেক সময়ই বংশগত ও অন্যান্য শারীরিক কারণে এই ধরনের ব্লাড ডিজঅর্ডারে ভোগে মানুষ। আর সেই ব্লাড ডিজঅর্ডারের ঝুঁকি বাড়তে থাকে আমাদের উচ্চতা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে। সারা বিশ্বের ২০ লাখ পুরুষ-নারীর উপর গবেষণার পর এই সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন সুইডেনের লান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা।

সুইডেনের লান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ও এই গবেষণার মুখ্য গবেষক বেনট জোলার বলেন, ‘সারা বিশ্বেই মানুষের গড় উচ্চতা বাড়ছে। আর সেই সঙ্গেই বাড়ছে ভেনাস থ্রম্বো এম্বোলিজমের ঝুঁকি। লম্বা মানুষের পায়ের শিরা লম্বা হওয়ার কারণে পায়ের উপরিতল বড় হয়। ফলে তাদের পায়ের শিরায় বেশি মাধ্যাকর্ষণ চাপ (গ্রাভিটেশনাল প্রেশার) পড়ে। যার ফলে রক্ত সঞ্চালনের গতি কমে যেতে পারে। ফলে সাময়িক ভাব শরীরে রক্ত চলাচল বন্ধও হয়ে যেতে পারে।

এই পরীক্ষার জন্য গবেষকরা ১৯৫১ থেকে ১৯৯২ সালের জন্মগ্রহণকারী ১৬ লাখ পুরুষ এবং ১৯৮২ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে প্রথম বার মা হয়েছেন এমন ১০ লাখ নারীকে বেছে নেন।

পুরুষদের ক্ষেত্রে দেখা গেছে যাদের উচ্চতা ৫ ফুট ৩ ইঞ্চির কম, তাদের এই সমস্যায় ভোগার ঝুঁকি যাদের উচ্চতা ৬ ফুট ২ ইঞ্চি বা তার বেশি, তাদের তুলনায় ৬৫ শতাংশ কম। নারীদের ক্ষেত্রে যাদের উচ্চতা ৫ ফুট ১ ইঞ্চির কম, এবং প্রথম বার অন্তঃসত্ত্বা তাদের ভেনাস থ্রম্বোএম্বোলিজমের সম্ভাবনা সবচেয়ে কম। ৬ ফুট বা তার চেয়ে লম্বা নারীদের তুলনায় এদের রক্ত জমাট বাঁধার ঝুঁকি প্রায় ৬৯ শতাংশ কম।ৃ

রক্ত জমাট বাঁধার পাশাপাশি এর আগের গবষেণায় লম্বা হওয়ার সঙ্গে ক্যানসার, হার্টের সমস্যা, ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে বলে জানিয়েছিলেন গবেষকরা। জার্নাল সার্কুলেশন: কার্ডিওভাসকুলার জেনেটিকস-এ এই গবেষণার ফল প্রকাশিত হয়েছে।

We use cookies to improve our website. By continuing to use this website, you are giving consent to cookies being used. More details…