শীতে ঠান্ডা না গরম পানিতে গোসল

শুক্রবার, ২২ ডিসেম্বর ২০১৭ ১২:৪৯ ঘণ্টা

শীত আসলেই ‘করি গোসল না ছুঁই পানি’ নীতিতে বিশ্বাসী কিছু মানুষ। গোসল না করলে ত্বক আর্দ্রতা হারিয়ে খসখসে হয়ে পড়ে। ত্বকের সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যায়। তাই কিছু মানুষ গরম পানিতে গোসল করেন। অথচ তারা জানেন না এই গোসল আমাদের শরীরের জন্য কতটা উপকারী। জেনে নিন শীতের ঠান্ডা বা গরম পানিতে গোসল করলে কি হয়।

>>  ঠান্ডা পানি গায়ে লাগলে শীত লাগে। কারণ ত্বক তার স্বাভাবিক তাপমাত্রা হারায় বলে। শীতের ঠান্ডা পরিবেশে তাপমাত্রার সঙ্গে মানাসই হতে দেহ নিজেই তাপ উৎপন্ন করে। এর জন্য দেহের কিছু কার্বহাইড্রেট খরচ হয়। গোটা এই ঘটনা দেহের সহজাত প্রক্রিয়া। ঠান্ডা পানির ব্যবহারে দেহের এই প্রক্রিয়াটি সচল থাকে।

>> ঠান্ডা পানিতে গোসল করলে দেহের রক্ত প্রবাহমাত্রা তুলনামূলক বৃদ্ধি পায়। ঠান্ডা পানির স্পর্শতে আমাদের ত্বক সঙ্কুচিত হয় যায়। ফলে রক্ত চলাচল কিছুটা ধীর গতিতে হওয়ার কারণেই রক্তচাপ বেড়ে যায় এবং শিরা-উপশিরায় দ্রুত গতিতে রক্ত ধাবিত হতে থাকে।

>> রক্তের শ্বেত কণিকা বাড়াতে চাইলে ঠান্ডা পানিতে গোসল করুন। ঠান্ডা ত্বক নিজেই তাপ উৎপাদনের সময় অধিক পরিমাণে শ্বেত কণিকার জন্ম দেয়। আর রক্তের এই কণিকা আপনার দেহের প্রতিরোধক ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

>> আমাদের অজান্তে কাজের সময় দেহের পেশীর সূক্ষ্ম টিস্যুগুলি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এদের আবার পূর্বের সুস্থতা ফিরিয়ে আনতে বিশ্রামের দরকার। ঠান্ডা পানি পরিশ্রমের পর দেহের পেশীকে আরাম দেয়।

>> ঠান্ডা পানির ব্যবহারে পুরনো কিছু ব্যাথা কমে যেতে পারে, চুলকানি দূর হয়, চুলের শ্রীবৃদ্ধি, দেহের অবাঞ্চিত উত্তেজনা প্রশমন হয় পাশাপাশি স্নায়ুর দুর্বলতা দূর করতে সাহায্য করে।‌‌

>> দেহের স্বাচ্ছন্দ্য ফিরিয়ে আনে-ঠান্ডা পানি। শরীরের এই স্বাচ্ছন্দ্য ঘুমের সমস্যা যারা ভোগেন তাদের উপকারে আসে।

We use cookies to improve our website. By continuing to use this website, you are giving consent to cookies being used. More details…