মেসিকে নিয়ে বার্সায় হচ্ছেটা কী!

বুধবার, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১৮:৫১ ঘণ্টা

দাড়ি রাখার পর এমনিতে তাঁর মুখের মিষ্টি হাসিটা আড়ালে গিয়ে অন্য রকম গাম্ভীর্য এসেছে। কিছুদিন ধরে লিওনেল মেসিকে আরও মুখ ভার ভার দেখাচ্ছে। বার্সেলোনা কি আর্জেন্টিনা—কোথাও স্বস্তিতে নেই তিনি। মাঠের খেলায় ক্লান্তির ছাপ। খুব একটা উৎসাহ যেন পাচ্ছেন না। আর্জেন্টিনা দলটার অবস্থা ভয়াবহ। বার্সার সাজানো সংসার অগোছালো। মাঠের বাইরেও বার্সায় মেসিকে নিয়ে কিছু একটা জটিলতা চলছে। ‘সব ঠিক আছে’ বার্তা দিয়ে ক্রীড়া দৈনিক ‘স্পোর্ত’কে দীর্ঘ এক সাক্ষাৎকার দিয়ে বার্সা সভাপতি যা বলেছেন, এতে সমর্থকদের স্বস্তির চেয়ে অস্বস্তি বেড়েছে আরও।

মেসির চুক্তি নবায়ন নিয়ে সৃষ্ট ধোঁয়াশা হার মানাচ্ছে সিনেমার চিত্রনাট্যকেও! এর আগে স্প্যানিশ রেডিও অন্দা সেরোর খেলাধুলার অনুষ্ঠান ‘রেডিও এস্তাদিও’তে জানা গিয়েছিল, বার্সেলোনায় চুক্তি নবায়ন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন মেসি। আগামী গ্রীষ্মেই তিনি ক্লাব ছাড়বেন ‘ফ্রি এজেন্ট’ হিসেবে। কিন্তু বার্সেলোনা সভাপতি হোসে মারিয়া বার্তোমেউ জানালেন, মেসির নতুন চুক্তিপত্রে নাকি এরই মধ্যে তাঁর বাবা সই করেছেন!
চলতি মৌসুম শেষেই বার্সায় মেসির বর্তমান চুক্তির মেয়াদ ফুরাবে। গত জুলাইয়ে বার্তোমেউ জানিয়েছিলেন, চার বছরের নতুন চুক্তিপত্রে সই করতে সম্মত হয়েছেন মেসি। এত দিন ব্যাপারটি নিয়ে ধোঁয়াশার মধ্যে ছিল সবাই। কিন্তু স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম ‘স্পোর্ত’ বার্তোমেউয়ের একটি সাক্ষাৎকার প্রকাশ করেছে, যেখানে বার্সা সভাপতি বলেছেন, ‘চুক্তিতে সম্মতি ও সই হয়েছে। মোট তিনটি চুক্তিপত্র—মেসি ফাউন্ডেশনের সঙ্গে চুক্তিপত্রে সই করেছেন ফাউন্ডেশনের সভাপতি, মেসির ভাই। মেসির ইমেজ স্বত্ব চুক্তিতে সই করেছেন তাঁর বাবা; নিজ প্রতিষ্ঠানের প্রশাসনিক প্রধান হিসেবে। মেসির খেলার চুক্তিতেও তাঁর বাবা সই করেছেন, তাঁর এটা করার ক্ষমতা আছে।’
বার্তোমেউকে দৈনিকটির পক্ষ থেকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, তাহলে চুক্তিপত্রে কী সমস্যা রয়েছে, যে কারণে ব্যাপারটা আগে প্রকাশ করা হলো না? বার্সা সভাপতির জবাব, ‘শুধু মেসির আনুষ্ঠানিক সই আর অফিশিয়াল ছবিই নেই। সে ফিরে (আন্তর্জাতিক সূচি শেষে) এলেই এসব সম্পন্ন হবে। সই করা নতুন চুক্তিপত্র কার্যকর হয়েছে গত জুন থেকে—৩০ জুন, যেদিন সে বিয়ে করল।’
বার্সা সভাপতির কথা অনুযায়ী, নতুন চুক্তির মেয়াদ কার্যকর হয়েছে দুই মাস হলো। কিন্তু এখনো মেসির সই না করা এবং তাঁর বদলে বাবার সইয়ের ব্যাপারটি প্রশ্নবিদ্ধ। এত দিনেও মেসির সই না করার কারণ হিসেবে ‘ব্যস্ত সূচি’র কথা বলেছেন বার্তোমেউ, ‘বিয়ে করে আসার পর মেসি জাপান গেল, তারপর সুপার কাপ...এখন লা লিগা চলছে।’ সব কথাই অজুহাতের মতো শুনিয়েছে। একটা সই করে ছবি তুলতে ৫-১০ মিনিটই তো লাগে। বার্তোমেউ মেসি-ভক্তদের আশ্বস্ত করেছেন, ‘দুশ্চিন্তার কিছু নেই। এ নিয়ে অনেক কোলাহল হলেও এক সময় সব শান্ত হয়ে আসবে।’
কিন্তু মেসির নতুন চুক্তিপত্র নিয়ে সত্যিই দুশ্চিন্তার অনেক কিছু আছে। বার্সেলোনা ফরোয়ার্ডের এখনো সই না করার কারণ ব্যাখ্যা করেছেন স্পেনের প্রভাবশালী বহুমুখী গণমাধ্যম ‘মিডিয়াপ্রো’র প্রতিষ্ঠাতা হাউমে রোউরেস, ‘মেসি যদি সই না করে থাকে তাহলে অবশ্যই কারণ আছে। সঠিক সময় ছাড়া সে চুক্তি সইয়ের ছবিতে থাকতে রাজি নয়।’
মেসির নতুন চুক্তিপত্রের মেয়াদ ২০২১ সাল পর্যন্ত। এ চুক্তিতে তাঁর ‘রিলিজ ক্লজ’ মূল্য হবে ৩০ কোটি ইউরো। আশ্চর্যের ব্যাপার, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ‘রিলিজ ক্লজ’ ১০০ কোটি ইউরো, এমনকি করিম বেনজেমারও তা-ই! নেইমার-অভিজ্ঞতার পর সতর্ক রিয়াল তাদের তরুণ প্রতিভা ইস্কো-এসেনসিওদের বাইআউট ক্লজ ৫০০ থেকে ৭০০ মিলিয়ন ইউরো করবে বলে শোনা যাচ্ছে। সেখানে মেসির বাইআউট ক্লজ ৩০০ মিলিয়ন! মেসি নিজেই নাকি এটি বাড়াতে রাজি নন।
এ ব্যাপারে বার্তোমেউয়ের ব্যাখ্যা, ‘কোনো খেলোয়াড় বার্সা ছাড়তে চাইলে বার্সা তাকে কখনোই ধরে রাখতে জোর করে না। আমরা মনে করি খেলোয়াড় এখানে পারফর্ম করতে আসে। তাই রিলিজ ক্লজ ৫০০, ৬০০, ১০০০ না ১৫০০ মিলিয়ন ইউরো, সেটা নিয়ে কেউ মাথা ঘামায় না। আমরা চাইলে যেকোনো মূল্য বসাতে পারি। কিন্তু কেউ চলে যেতে চাইলে তাকে নিয়ে বসে সমাধান বের করা হয়।’
তবে নেইমারের দলবদল ও মেসির চুক্তি নবায়ন ইস্যুতে বার্তোমেউ যে বড় ঝামেলায় পড়তে যাচ্ছেন, তা মোটামুটি নিশ্চিত। নেইমারের বার্সায় থাকার ব্যাপারে ‘২০০% নিশ্চয়তা’ দিয়েও তাঁকে ধরে রাখতে পারেননি। এদিকে মেসির চুক্তি নবায়ন নিয়েও জটিলতা আরও বাড়ছে। ইউরোপের বেশির ভাগ সংবাদমাধ্যমের অভিমত, আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড হয়তো বার্সা ছাড়ার বিকল্প ভেবে রেখেছেন চলতি মৌসুম শেষে। এসব ইস্যুতে বার্তোমেউয়ের বিপক্ষে ‘অনাস্থা’ ভোটের প্রচারণাও শুরু করেছেন ক্লাবটির সাবেক সভাপতি পদপ্রার্থী অগাস্তি বেনেদিত্তো। নিজ প্রচারণার পক্ষে ইতিমধ্যেই ১৬ হাজার ৫০০ ভোট পেয়েছেন বেনেদিত্তো। সূত্র: স্পোর্ত।

We use cookies to improve our website. By continuing to use this website, you are giving consent to cookies being used. More details…