২০ বছর পর এক ম্যাচে এতো ফাউল!

সোমবার, ১৮ জুন ২০১৮ ১৯:৫১ ঘণ্টা

বিশ্বকাপে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে সব মিলিয়ে ১০ বার ফাউলের শিকার হয়েছেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড নেইমার। কিন্তু তাতে বিরক্ত নন তিনি, বরং নেইমার মনে করেন- বিষয়টি দেখবেন রেফারিরা। মাঠে তিনজন রেফারি থাকেন তারাই দেখবেন। না পারলে সেটা তাদের সমস্যা। তবে প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডারদের একের পর এক ফাউল থেকে রেফারিদের কাছে তিনি নিজের সুরক্ষা চেয়েছেন। 

ক্রীড়া উপাত্ত বিশ্লেষক প্রতিষ্ঠান অপটা জানায়, ১৯৯৮ সালে ফ্রান্স বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের অ্যালান শিয়েরারের পর বিশ্বকাপে এক ম্যাচে এত বেশি ফাউলের শিকার হলেন নেইমার। তবে প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডারদের নিয়মিত ট্যাকলের শিকার হওয়াটা স্বাভাবিক হয়ে যাবে বলে মেনে নিচ্ছেন ব্রাজিলের তারকা এই ফরোয়ার্ড। খবর: মার্কা



রস্তোভ-অন-ডনে রবিবার রাতে ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়। ফিলিপে কুতিনহো ব্রাজিলকে প্রথমার্ধে এগিয়ে নিলেও দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে স্টিভেন জুবারের গোলে সমতা ফেরায় সুইসরা।

তবে বিশ্বকাপে তার মতো তারকা স্ট্রাইকারকে ফাউলের শিকার হতেই হবে- এটা নেইমার নিজেও জানেন। তাইতো তার সোজা কথা- ‘আমাকে আঘাত করা হয়েছিল এবং এটা ছিল বেদনাদায়ক। কিন্তু এতে চিন্তার কিছু নেই... শরীর ঠাণ্ডা হয়ে গেলে ব্যাথা একটু বেশি লাগে। কিন্তু আমি ঠিক আছি।’ 



ফাউলের বিষয়য়ে তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে আমার কিছুই বলার নেই। আমার কেবল ফুটবল খেলতে হয় বা খেলতে চেষ্টা করতে হয়। এটা দেখার জন্য রেফারি আছেন। হয়তো এটা স্বাভাবিকই (নিয়মিত ফাউলের শিকার হওয়াটা) হয়ে যাবে। আমাদের এতে মনোযোগ দিতেই হবে, কিন্তু এটা ফুটবলে স্বাভাবিক।’



এদিকে ব্রাজিল দলের প্রধান চিকিৎসক রদ্রিগো লাসমার জানিয়েছেন, গ্রুপ পর্বে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আগামী শুক্রবার কোস্টারিকার বিপক্ষে খেলার জন্য শতভাগ ফিট থাকবেন নেইমার। তার নির্দিষ্ট চিকিৎসার আর কোনও প্রয়োজন নেই।’

We use cookies to improve our website. By continuing to use this website, you are giving consent to cookies being used. More details…