Logo
ব্রেকিং নিউজ :
Wellcome to our website...

উপজেলা চেয়ারম্যানের বাড়ীতে ডাকাতি এক সপ্তাহেও ডাকাতির কোনো ক্লু মিলেনি !

কাজী সাব্বির আহমেদ দীপু 495 বার
আপডেট সময় : Sunday, June 7, 2020
ফাইল ছবি

5

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা চেয়ারমান মো. আনিছুজ্জামান আনিসের বাসভবনে দুধর্ষ ডাকাতির ঘটনার ৪ দিন অতিবাহিত হলেও জড়িত সংঘবদ্ধ ডাকাতদল এখনও ধরাছোাঁয়ার বাইরে। গতকাল শনিবার বিকেল পর্যন্ত ডাকাত দলের কোনো সদস্যকেই আইনের আওতায় নেওয়া সম্ভব হয়নি। এমনকি এক সপ্তাহেও সংঘটিত দুধর্ষ ডাকাতির কোন ক্লু খুঁজে পায়নি পুলিশ। ফলে জেলাবাসী এ ঘটনা নিয়ে এখনও অন্ধকারের মধেই রয়েছে। শহর ও শহরাঞ্চলের মানুষের মধ্যে পুলিশের ভুমিকা নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

শহরবাসী বলছে, শুধু এ ডাকাতির ঘটনাই নয়, চরাঞ্চলের বাংলাবাজারে পপি চাষের সঙ্গে জড়িত ইউপি সদস্য স্বপন দেওয়ান, গজারিয়াকান্দি গ্রামে অস্ত্র কারখানার সন্ধান পেলেও আসামীরা পলাতক, অভিযান চলছে-এমন শব্দ ব্যবহার করে আসামীদের গোপনে আদালতে আত্মসর্মপন হওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে। ফলে জেলাবাসী এসব ঘটনার নেপথ্য রহস্য জানতে বঞ্চিত হয়েছে। তেমনি ভাবে সদর উপজেলা চেয়ারম্যানের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনাও ধামাচাপা পড়ে যাবে বলেও অনেকে মন্তব্য করেছেন।

সদর উপজেলা চেয়ারম্যানের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ডাকাতরা কথা বলার সময় তাদের ভাষা ফরিদপুর-শরীয়তপুর বেল্ডের মনে হয়েছে। তবে স্থানীয় কোন চক্র ওই ডাকাতদলের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারে বলে ধারণা করছে। ডাকাতি করার পর ডাকাতদল বাড়ির পশ্চিম-দক্ষিন কোনা দিয়ে দেওভোগের দিক দিয়ে বেড়িয়ে গেছে বলে খোঁজখবর নিয়ে জানতে পেরেছে। কিন্তু পুলিশ এখনও কোন অগ্রগতিই দেখাতে পারেনি। যা উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার।

মুন্সীগঞ্জ ডিবি পুলিশের ওসি মো. মোজাম্মেল হক জানান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যানের বাসভবনে দুধর্ষ ডাকাতির ঘটনাটি সাম্প্রতিক সময়ে মুন্সীগঞ্জ জেলায় সংঘটিত বিভিন্ন অপরাধের মধ্যে সবচেয়ে বড় অপরাধমূলক ঘটনা। তাই এ ডাকাতির ঘটনা অপরাধ তালিকায় এক নম্বরে স্থান দিয়ে জেলা পুলিশ সুপার মো. আব্দুল মোমেন পিপিএম’র নির্দেশনায় পৃথক তদন্ত ও গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রেখেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অপর একাধিক সংস্থা। এছাড়া জেলার স্থল ও জলপথের সকল পয়েন্টে কঠোর নজরদারিতে রাখা হয়েছে।

পুলিশের একাধিক সূত্র মনে করছে, জেলা লকডাউনে থাকাবস্থায় গত ২১ এপ্রিল দিনগত রাতভর মুন্সীগঞ্জের ৬টি উপজেলাবাসী ডাকাত আতঙ্ক নিয়ে রাতযাপন করেছে। ‘ডাকাত পড়েছে, সর্তক থাকুন’ এমন গুজব বিভিন্ন মসজিদ থেকে প্রচার করে জেলার ১৬ লাখ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক আরও বাড়িয়ে দেয়। আর এ গুজব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে মুর্হুতেই ছড়িয়ে পড়েছে জেলার ২টি পৌরসভা ও ৬৮টি ইউনিয়নে।

পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা বলেন, ওই গুজবের ৪১ দিনের মাথায় মুন্সীগঞ্জ জেলায় লকডাউন প্রত্যাহার করার দিনগত রাতেই সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আনিছুজ্জামান আনিসের শহরের মধ্যকোটগাঁওস্থ বাসভবনে দুধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত হয়। ডাকাতদল নগদ ৫ লাখ টাকা ও ১২০ ভরি স্বর্নালংকার লুট করে নিয়ে যায় এবং সদর উপজেলা চেয়ারম্যানকে মারধর করে। যা শুধু শহরবাসীকে নয়, খোদ পুলিশের সদস্যরাও বিস্মিত। তাই গত ৩১ মে ভোর রাতে শহরের মধ্যকোটগাঁওস্থ বাসভবনে দুধর্ষ ডাকাতির ঘটনার আদ্যপান্ত চুলচেরা বিশ্লেষন করা হচ্ছে বলেও জানান নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ কর্মকর্তা।

সদর থানার পুলিশ জানায়, ডাকাতির ঘটনায় সোমবার রাতে মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় মামলা হয়েছে। সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আনিসুজ্জামান নিজেই এ মামলার বাদী হয়েছে। বুধবার পর্যন্ত সংঘবদ্ধ ডাকাতদলের কোন সদস্যকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com
0Shares
0Shares