Logo
ব্রেকিং নিউজ :
Wellcome to our website...

গণমানুষের অবহেলা উদাসীনতা বাড়ছে করোনা ঝুকি

সালেহীন তুহিন 125 বার
আপডেট সময় : Friday, May 15, 2020

5

‘অবহেলা ও উদাসীনতা’ শব্দ দু’টি প্রায় কাছাকাছিই বলাচলে। বাক্য ভেদে শব্দ ২টির তারমতেম্যর ক্ষেত্রেও যৎসামান্যই। কেবল চুলচেরা বিশ্লেষনে শব্দ দু’টির প্রার্থক্য নিরূপন সম্ভব। ক্ষেত্রবিশেষ প্রায়োগিকের দিক থেকেও পৃথকতা প্রতীয়মান হয়। মৌলিক ধারনা যথোপযুক্ত হলেও সহজ বাংলায় এর অর্থ হচ্ছে যথাক্রমে ‘আমলে না নেওয়া ও আমল পূর্বক প্রতিক্রীয়াহীনতা’। তবে এ দুই শব্দের সমার্থকতাই অধিকতর। বিশেষত বৈশিষ্টের ক্ষেত্রে দুই শব্দেরই পজেটিভ দিক কিংবা কল্যাণকর শতভাগই অনুপস্থিত। বর্তমান বাংলাদেশের আর্থ সামাজিক প্রেক্ষাপটে শব্দ ২টি প্রবল গুরুত্ব বহন করে। দেশেরতো বটেই মুন্সীগঞ্জ জেলার নিমিত্তে উক্ত শব্দগুলোর বৈপরিত্য অনুসরনে চলমান প্রানঘাতী থেকে নিস্কৃতি সম্ভবপর। অর্থাৎ কোভিড-১৯ এর প্রকোপ থেকে বাঁচতে নির্ধারীত নির্দেশাবলী অনুসৃতে অবহেলা ও উদাসীনতা পরিহার করা।

এদিকে, গত বুধবার রাত পর্যন্ত দেশে রেকর্ড করোনা সংক্রমিতে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। অর্থাৎ ২৪ ঘন্টা অন্তে ১৯ জনের মৃত্যুর ঘোষনা দেন স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় থেকে নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে আসা নাসিমা সুলতানা। তার ভাষ্যমতে উক্ত ১৯ জনের মধ্যে ১জন মুন্সীগঞ্জের অধিবাসি। মাত্র ২৪ ঘন্টায় ১৯ জনের মৃত্যু দেশে নতুন রেকর্ড। গতকাল বৃহস্পতিবার দেশে ১৪জন আক্রান্তের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে বিগত ২ দিনেই করোনা আক্রান্তে মৃত্যুর সংখ্যা দাড়িয়েছে ৩৩ জনে। বিগত ২ দনি আগে অর্থাৎ গত মঙ্গলবার পর্যন্ত দেশে সংক্রামিতে মোট মৃতের সংখ্যা ছিল ১৫০ জন। এক লাফেই তা উন্নীত হল ১৮৩ জনে।

বর্তমান পরিস্থিতিতে একথা নিশ্চয়ই অত্যুক্তি হবে না যে, সংক্রমিত বা আক্রান্তের সঙ্গে প্রায় পাল্লা দিয়েই বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। করোনা ভাইরাস সংক্রমনের ক্ষেত্রে দেশে বিদ্যমান অবস্থায় যে কোন মুহুর্তেই আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার অতিক্রম সময়ের ব্যপার মাত্র। স্থুলুজ্ঞান সম্পন্ন মানুষের পক্ষেও বোধগম্য যে, দেশ উদ্বেগজনক পরিস্থিতির দিকে ধাবমান।

অপরদিকে, গতকাল বৃহস্পতিবারও জেলায় নতুন করে ২৭ জনের পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে মুন্সীগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ নাজমুস শোয়েব (৪০) অন্তভর্‚ক্ত। নতুন আক্রান্ত ২৭ সহ জেলায় মোট আক্রান্ত ৩৩১ জন। নতুন পজেটিভ শনাক্তের মধ্যে জেলা সদরে ৭ জন, টঙ্গীবাড়ীতে ১২, গজারিয়া ৪, সিরাজদিখান ৪ জন সংক্রমিত হয়েছেন।

জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ আবুল কালাম আজাদ বলেন, গত ১১ ও ১২ মে সোয়াব সংগ্রহ পূর্বক মোট ১২৪ জনের নমুনা নিপসমে পাঠানো হয়। এর মধ্যে ২৭ জন পজেটিভ শনাক্ত। জেলায় এ পর্যন্ত ৩৪ জন সুস্থ্য হয়েছেন বলে তিনি আরো জানান। এছাড়া গতকাল আরো ১৩৭ টি নমুনা প্রেরন করা হয়েছে। জেলায় মোট আক্রান্ত ৩৩১ জনের মধ্যে স্বাস্থ্য বিভাগেরই ৭০ জন আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

আঅভিজ্ঞ মহলের অভিমত, মুন্সীগঞ্জ জেলা কোভিড-১৯ সংক্রমনের ক্ষেত্রে সহসাই বিচ্ছিন্নতার একটি বৈশিষ্ট লক্ষ্য করা যাচ্ছে। কেননা সংক্রমিতে সংখ্যা ও এলাকার ক্ষেত্রে তা স্পষ্টতাই প্রতিয়মান হয়। তাদের মতে জেলা সদরে গত বুধবার কোন পজেটিভ শনাক্ত হয়নি ঠিক অনুরূপ গতকাল বৃহস্পতিবার টঙ্গীবাড়ী উপজেলায় পজেটিভ শনাক্ত হয় ১২ জন। হতবাকের বিষয় হচ্ছে আক্রান্ত উক্ত ১২ জনের সকলেই টঙ্গীবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্যবিভাগে কর্মরত। এর মধ্যে চিকিৎসক ও রয়েছেন।

ফলে করোনা সংক্রমনের ক্ষেত্রে স্থান কাল, পাত্রভেদের যেমন কোন বিষয় নেই তদরূপ ধারাবাহিকতারও কোন প্রকৃতির লক্ষন নেই। তাদের আরো মতামত, জেলায় যে হারে সংক্রমিতের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে সেতুলনায় গন-সচেতনতার ক্ষেত্রে ঠিক বৈপরিত্য চিত্র। পরিতাপের বিষয় হচ্ছে সাধারণ মানুষের মাঝে দেড় মাসাধিকালেও গন সচেতনতা ও সতর্কতার বোধোদয় সম্ভব হয়নি বলে মতামত পোষন করেন তারা। পাশাপাশি এ ক্ষেত্রে অবহেলা ও উদাসীনতাই যেন প্রলম্বিত যাত্রা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com
0Shares
0Shares