Logo
ব্রেকিং নিউজ :
Wellcome to our website...

জেলায় অনুপ্রবেশ ঠেকানো যাচ্ছে না-সংক্রমিতের সংখ্যা বাড়ছেই

ডেস্ক রির্পোট 324 বার
আপডেট সময় : Sunday, May 3, 2020

1

কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাসে সংক্রমণের ক্ষেত্রে খোদ রাজধানী ঢাকা সর্বোচ্চ নাজুক অবস্থায়। এর ঠিক পরের স্থানেই নারায়ণগঞ্জ। সারাদেশে সংক্রমিতের মোট সংখ্যার অনুপাতে এক তৃতীয়াংশই এ ২ জেলায়। গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত আইইডিসিআর থেকে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী মুন্সীগঞ্জ জেলায় সংক্রমিত হয়েছেন ১১২ জন। উপরোল্লিখিত অর্থাৎ ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের সঙ্গে সরাসরি সীমানা রয়েছে মুন্সীগঞ্জের। তাই অনায়াসে উক্ত ২ জেলার জনসাধারণ মুন্সীগঞ্জে অনুপ্রবেশ করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নারায়ণঞ্জে বসবাসরত লোকজনরা খুব সহজেই মুক্তারপুর  ব্রীজ অতিক্রম করে জেলা সদরে ঢুকছে। মুক্তারপুরের স্থায়ী বাসিন্দা মোঃ আরমান হোসেন জানান, উক্ত ব্রীজ সংলগ্ন এলাকায় সকাল থেকে রাত অব্দি পুলিশের চেক পোস্ট বিদ্যমান থাকে। প্রায়ই পুলিশ পুশ-ব্যাকের মাধ্যমে লোকজনদের ফেরত পাঠায়। কিন্তু কৌশলে প্রায় দেড় কিলোমিটার দীর্ঘ সেতু হেটে পার হয়ে অনুপ্রবেশ করেছে। মূলতঃ সেতুর পশ্চিমপ্রান্ত বা টোলপ্লাজার কাছে গাড়ী থেকে নেমে পায়ে হাটা শুরু করে। তার মতে প্রতিদিন কয়েক’শ জনগোষ্ঠী উপরোক্ত পন্থায় ঢুকে পরছে মুন্সীগঞ্জে।

সংশ্লিষ্ট মহলের অভিমত, জেলায় প্রথম করোনা সংক্রমিত যে রোগী শনাক্ত হয়, তিনিও নারায়নগঞ্জ থেকে মুন্সীগঞ্জে অনুপ্রবেশ করেন। তারপর থেকে প্রতি দিনান্তে জেলায় সংক্রমিত বৃদ্ধির ধারাবাহিকতায় ১১২ জনে দাঁড়িয়েছে।

অন্যদিকে, ঢাকা-মাওয়া রুটে বিভিন্ন উপায়ে রাজধানীর মানুষ ঢুকে পরছে জেলায়। এছাড়া বুড়িগঙ্গা নদী হতে ট্রলারযোগে ধলেশ^রী সীমানায় পৌছলেই মুন্সীগঞ্জ। স্থল ও নৌপথে ইতোমধ্যেই রাজধানী থেকে অসংখ্য মানুষ জেলাসদর সহ সিরাজদিখান, শ্রীনগর, লৌহজং ও টঙ্গীবাড়ী উপজেলায় অনুপ্রবেশ করছে। অপরদিকে, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক জেলার গজারিয়া উপজেলাকে ভেদ করেছে দেশের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এই মহাসড়কটি। লক ডাউনের মধ্যেও জরুরী পণ্য পরিবহনের কারনে মহাসড়কটি সম্পূর্ণ বন্ধ করা যায়নি। ফলে যাত্রীবাহি বাস না চললেও নানা উপায়ে গজারিয়ায় অনুপ্রবেশ করছে রাজধানীর জনসাধারণ। ফলে গজারিয়া উপজেলার সাধারন মানুষ সংক্রমণের কবল থেকে মুক্ত হতে পারেনি। স্থানীয় একাধিক অধিবাসী জানান, এখনো যদি ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের অধিবাসীদের উপজেলায় অনুপ্রবেশ ঠেকানো সম্ভব হয় তবে সংক্রমণ হ্রাস পাবে বৈ বাড়বে না। অভিজ্ঞমহলের অভিমত, মুন্সীগঞ্জ জেলার অভ্যন্তরে অন্যান্য জেলা থেকে অনুপ্রবেশের ¯্রােত থামাতে হবে। প্রয়োজনে বিদ্যমান চেকপোস্টগুলোতে কড়াকড়ি আরোপ করতে হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com
0Shares
0Shares