Logo
ব্রেকিং নিউজ :
Wellcome to our website...

মুন্সীগঞ্জে আরও ২০ জনের করোনা, জেলায় ১৬৬১

নাসির উদ্দিন 413 বার
আপডেট সময় : Wednesday, June 17, 2020

3

মুন্সীগঞ্জ বুধবার আরও ২০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট ১৬৬১ জনের করোনা শনাক্ত হলো। বুধবার নতুন আরও ২০ জন সুস্থ হয়ে জেলায় এখন করোনা জয়ীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৯৪। এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় কেউ মারা যাননি। জেলায় মোট মারা গেছেন ৩৯ জন। সিভিল সার্জন ডা. আবুল কালাম আজাদ জানিয়েছেন, বুধবার নতুন শনাক্ত ২০ জনের মধ্যে সদর উপজেলায় ৮ জন, লৌহজং উপজেলায় ১২ জন করোনা শনাক্ত হয়েছে।

গত ১২ ও ১৩ তারিখের ৬৮ রিপোর্ট এসেছে। এর মধ্যে ২০ জন করোন ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি আরও জানান, জেলায় ৭৮৭৯ টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে এর মধ্যে রিপোর্ট এসেছে ৭২৮৬ টি।

লৌহজংয়ে ১২ জনের করোনা-
মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে বুধবার ১২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এরা হলো- ভোগদিয় গ্রামের তিন জন- পুরুষ (৩৩), মহিলা (৩০), মহিলা (১৮), বেজগাঁও গ্রামে পুরুষ (৫৫), গাঁওদিয়া গ্রামে তিন জন- মহিলা (২০), মহিলা (১৫) ও মহিলা (১৪), মসদগাঁও গ্রামে পুরুষ (৬৫), হাটভোগদিয়া গ্রামের (৫৫), নওপাড়া গ্রামের (৫০), কাজীর পাগলা গ্রামে (৬০) এবং মাওয় গ্রামের পুরুষ (২৬)।

মুন্সীগঞ্জ সদরে ৮ জনের করোনা-
বুধবার সদর উপজেলায় নতুন করে ৮ জন করোনা শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে সদের মোট ৭১৯ জন করোনা আক্রান্ত হন। এরা হলেন কাজী কসবার মহিলা (২১), মাকহাটির মহিলা (৪৫), বজ্র্রযোগোনীর পুরুষ (৪১), গনকপাড়ার পুরুষ (২৬), মুন্সীরহাটের পুরুষ (২৯), মহিলা (২২), প্রিমিয়াম ব্যাংকের পুরুষ (১৯), নয়াকান্দির মহিলা (৩৫)। এছাড়াও উপজেলায় গত ২৪ ঘন্টায় কেউ মারা যায়নি। উপজেলায় সর্বমোট ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৪ জন। সর্বমোট সুস্থ হয়েছেন ১৫৪ জন।

আইসোলেশনে ১১ জনের মৃত্যু-
মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের করোনা কেয়ার সেন্টার বা আইসোলেশন সেন্টারে ৮৪ জন রোগীর চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়েছে। এরমধ্যে বুধবার একজনসহ ১১ জনের মারা গেছেন। ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে ১৩ জনকে। সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন সুস্থ ৪৩ জন। বুধবার রাতে এই রিপোর্ট লেখার সময় আইসোলেশনটিতে ভর্তি হয়েছে চিকিৎসাধীন আছেন ১৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১৫ এবং নারী ৩ মহিলা। গত ২২ এপ্রিল থেকে করোনা চিকিৎসার জন্য এই আইসোলেশন সেন্টার চালু করা হয়।

সিভিল সার্জন ডা. আবুল কালাম আজাদ জানিয়েছেন, জেলায় এ পর্যন্ত ৭২১৮টি রিপোর্ট এসেছে। ৭৮৮০ টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। এছাড়া বুধবার নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১৬৫ জনের। জেলায় এপর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৬৬১ জনের। মারা গেছেন ৩৯ জন। সুস্থ হয়েছে ৩৯৪ জন।

১৬৫ জনের নমুনা সংগ্রহ-
মুন্সীগঞ্জে বুধবার ১৬৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এর মধ্যে মুন্সীগঞ্জ সদরে ৮২, সিরাজদিখান উপজেলায় ২৯, লৌহজং ৩৯, শ্রীনগর ১৫ও টঙ্গীবাড়ি উপজেলায় ১ জন। তবে বুধবার গজারিয়া উপজেলা থেওেক কোন নমুনা প্রেরণ করা হয়নি।

মুন্সীগঞ্জ আইসোলেশন সেন্টারে রোগীর মৃত্যু-
মুন্সীগঞ্জ আইসোলেশন সেন্টারে করোনা উপসর্গ নিয়ে বুধবার সন্ধ্যার আগে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। এই ব্যক্তির নাম নাজির আহমেদ (৫০)। তিনি মঙ্গলবার সকালে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন সেন্টারে ভর্তি হন। মঙ্গলবারই তার করোনা পরীক্ষার জন্য সোয়াব নেয়া হয়। কিন্তু রিপোর্ট আসার আগেই না ফেরার দেশে চলে গেলেন। তিনি শহরের হাটলক্ষীগঞ্জের সৈয়দ আহম্মেদের পুত্র। মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা সুমন কুমার বণিক জানিয়েছেন, ডব্লিউএইচওর নির্দেশনা মোতাবেক দাফনের জন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশনকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

গজারিয়ায় করোনা উপসর্গ নিয়ে দুই জনের মৃত্যু-
গজারিয়ায় করোনা উপসর্গ নিয়ে ২জন মারা গেছেন। তবে মৃত্যুর পর তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি। পারিবারিকভাবে তাদের দাফন কার্য শেষ করা হয়েছে বলে জানা গেছে। খবর নিয়ে জানা যায় গত মঙ্গলবার গজারিয়া উপজেলার গোসাইর চর গ্রামের জয়নাল (৫৫) নামে এক ব্যক্তি করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যায়। স্থানীয়রা জানিয়েছে মৃত্যুর আগে তার মধ্যে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ ছিল। তবে বিষয়টি নিয়ে পরিবারের কোন লোক কথা বলতে রাজি হননি। এদিকে বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার বাউশিয়া ইউনিয়নের দড়ি বাউশিয়া গ্রামে করোনা উপসর্গ নিয়ে মফিজ (৪৫) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তার পরিবারের স্বজনরা জানান মারা যাওয়ার পূর্বে তার শরীরে করোনা উপসর্গ থাকায় গজারিয়া উপজেলা স্বাস্ব্য কমপেক্সে যোগাযোগ করেছিল। তিনি তবে নমুনা সংগ্রহের কীটের সংকট থাকায় তার নমুনা নেয়া সম্ভব হয়নি।

বিষয়টির সম্পর্কে জানতে গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবারের পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ তাছলিমা আনামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়ার বিষয়টির সম্পর্কে তিনি অবগত নন। জনপ্রতিনিধিরা অত্র এলাকার দায়িত্বশীল ব্যক্তিবর্গ বিষয়টি তাদের অবহিত করলে তারা নমুনা সংগ্রহ করতেন।

এদিকে গজারিয়া আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। বুধবার ৩ জনসহ ও উপজেলায় এখন পর্যন্ত ১৫৮ জন করোনা শনাক্ত হয়েছে, এদের মধ্যে ৫০ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com
0Shares
0Shares