Logo
ব্রেকিং নিউজ :
Wellcome to our website...

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট সময় : Monday, October 26, 2020

1

পদ্মায় নাব্য সংকটে ১১দিন বন্ধ থাকার পর শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি নৌরুটে সোমবার সকালে বিকল্প চ্যানেলে সীমিত পরিসরে ফেরি চলাচল শুরু হয়। তবে চালুর পাঁচ ঘন্টার মাথায় বেলা ১১টায় আবারো এই রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ করেছে বিআইডাব্লিউটিসি।

বিকল্প চ্যানেলে ফেরি চলাচলে চ্যানেলটি দিয়ে পদ্মা সেতুর প্রকল্পের অধীনে থাকা ৪০০ কেভিএ বিদ্যুতের টাওয়ার নির্মাণ কাজে ব্যবহৃত ক্রেন ও গুরুপূর্ণ নৌযান চলাচল বন্ধসহ সেতুর কাজে জটিলতা তৈরি হয়৷ তাই ফেরি চলাচল বন্ধের এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
বিআইডাব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের সহব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) ফয়সাল জানান, সোমবার সকাল ৬টায় মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট থেকে কাঠালবাড়ি ঘাটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় ফেরি কিশোরী ও ফেরী কাকলি। ফেরিগুলো নদীর লৌহজং পয়েন্ট পদ্মা সেতুর ৩৭-৩৮ নং পিয়ারের মাঝ বিকল্প চ্যানেলে পদ্মা পারি দেয়। পরে কাঠালবাড়ি ঘাট থেকেও দুইটি ফেরি শিমুলিয়া ঘাটে আসে। কিন্তু বেলা ১১টার দিকে পদ্মা সেতুর কাজ ব্যহত হচ্ছে বলে জানায় সেতু কর্তৃপক্ষ। এরপরই উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ফেরি চলাচল বন্ধ করা হয়।

এ বিষয়ে পদ্মা সেতু নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়া আব্দুল কাদের জানান, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অনুরোধের প্রেক্ষিতে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত বিআইডাব্লিউটিসির ফেরিগুলো সেতুর পাশ দিয়ে চ্যানেলে চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়ছিল। তবে, তারা সে চ্যানেল ব্যবহার না করে অনুমতি না নিয়েই বিকল্প চ্যানেলে ৪০০ কেভিএ বিদ্যুৎ লাইনের রুট দিয়ে চলাচল করছিল। এতে সেতু প্রকল্পের অধীনে থাকা নির্মাণাধীন ৪০০ কেভিএ বিদ্যুৎ টাওয়ারের কফারড্যামবাহী ৫০০ টন ওজনের ক্রেনসহ সেতুর কাজে গুরুত্বপূর্ণ নৌযান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। দুটিই সরকারি কাজ, সেতুর কাজে জটিলতা তৈরি হওয়ায় তাদের জানানো হয়েছে। তারা মন্ত্রণালয় থেকে অনুমতি পেলে অবশ্যই চ্যানেলটি ব্যবহার করতে পারবে।

প্রসঙ্গত, নাব্য সংকট ও চ্যানেল বিপর্যয়ের কারণে কয়েক মাস যাবতই ফেরি চলাচল ব্যাহত হয়। গত ১৫ অক্টোবর দুপুর থেকে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি নৌরুটে পুরোপুরি বন্ধ ছিল ফেরি চলাচল।


এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com
0Shares
0Shares