Logo
ব্রেকিং নিউজ :
Wellcome to our website...

সিরাজদিখানে জুতা পায়ে শহীদ মিনারে আ.লীগ নেতার শ্রদ্ধাঞ্জলি

অনলাইন ডেস্ক 145 বার
আপডেট সময় : Sunday, February 21, 2021
সিরাজদিখানে জুতা পায়ে শহীদ মিনারে আ.লীগ নেতার শ্রদ্ধাঞ্জলি

8

একুশে ফেব্রুয়ারির (রোববার) প্রথম প্রহরে উপজেলার রাজদিয়া অভয় পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় শহীদ মিনারে ফুল দিতে গিয়ে এ ঘটনা ঘটে। একজন জনপ্রতিনিধির এমন কাণ্ডে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে সমালোচনা।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রাজদিয়া অভয় পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে উপজেলা প্রশাসনের কর্মসূচিতে আবু বকর সিদ্দিক শ্রদ্ধা জানাতে যান। এ সময় তিনি জুতা পায়ে শহীদ মিনারের বেদিতে উঠে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। মুহূর্তে ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা এবং সচেতন মহলের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একজন জনপ্রতিনিধির এমন কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানান।

ভুল স্বীকার করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক বলেন, ‘অজ্ঞাতসারে এমন ভুল হতে পারে। যদি শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা না থাকতো তাহলে গভীর রাতে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে যেতাম না। মনের অজান্তে আমার এমন একটি ভুল নিয়ে প্রতিপক্ষ রাজনীতি শুরু করেছে।’

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম বলেন, ‘উপজেলা প্রশাসন শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি দেয়ার পর ছয় বা সাত নম্বরে উপজেলা আওয়ামী লীগ শ্রদ্ধাঞ্জলি দেয়। সেসময় অন্ধকার থাকায় হয়তো আমার দৃষ্টিগোচর হয়নি। পরে সাংবাদিকদের মাধ্যমে আমি বিষয়টি জানতে পারি। তবে অনাকাঙ্ক্ষিত এমন ঘটনা দুঃখজনক। ভবিষ্যতে উপজেলা প্রশাসন এ বিষয়ে আরও সর্তক থাকবে।’

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বালুচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু বকর সিদ্দিককে জুতা পায়ে শহীদ মিনারের বেদিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করতে দেখা গেছে।

একুশে ফেব্রুয়ারির (রোববার) প্রথম প্রহরে উপজেলার রাজদিয়া অভয় পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় শহীদ মিনারে ফুল দিতে গিয়ে এ ঘটনা ঘটে। একজন জনপ্রতিনিধির এমন কাণ্ডে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে সমালোচনা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রাজদিয়া অভয় পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে উপজেলা প্রশাসনের কর্মসূচিতে আবু বকর সিদ্দিক শ্রদ্ধা জানাতে যান। এ সময় তিনি জুতা পায়ে শহীদ মিনারের বেদিতে উঠে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। মুহূর্তে ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা এবং সচেতন মহলের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একজন জনপ্রতিনিধির এমন কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানান।

ভুল স্বীকার করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক বলেন, ‘অজ্ঞাতসারে এমন ভুল হতে পারে। যদি শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা না থাকতো তাহলে গভীর রাতে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে যেতাম না। মনের অজান্তে আমার এমন একটি ভুল নিয়ে প্রতিপক্ষ রাজনীতি শুরু করেছে।’

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম বলেন, ‘উপজেলা প্রশাসন শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি দেয়ার পর ছয় বা সাত নম্বরে উপজেলা আওয়ামী লীগ শ্রদ্ধাঞ্জলি দেয়। সেসময় অন্ধকার থাকায় হয়তো আমার দৃষ্টিগোচর হয়নি। পরে সাংবাদিকদের মাধ্যমে আমি বিষয়টি জানতে পারি। তবে অনাকাঙ্ক্ষিত এমন ঘটনা দুঃখজনক। ভবিষ্যতে উপজেলা প্রশাসন এ বিষয়ে আরও সর্তক থাকবে।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com
0Shares
0Shares